ঢাকা, বুধবার   ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০,   আশ্বিন ৭ ১৪২৭,   ০৫ সফর ১৪৪২

চিরায়ত বাংলার ঐতিহ্যবাহী সংগীত মেয়েলি গীত। প্রাচীন যুগ থেকে গ্রামীণ নারী নিজের মনে প্রজন্ম পরম্পরায় রচনা করছে ও গাইছে এসব গীত। যদিও সময়ের পরিবর্তনে এখন সব কিছুর মতো এই পুরনো ধারাটিও প্রায় লুপ্ত হতে বসেছে। তবুও পল্লী-বাংলার কোনো নিভৃত কোণে এখনো হয়তো কোনো প্রবীণা গ্রামীণ নারীর কণ্ঠে  কোনো বিয়ের অনুষ্ঠানে চকিতে শোনা যাবে এই সব গীত-

বুধবার, ১০ জুলাই ২০১৯, ১৮:১৮

সুখ-দুঃখের সুরেলা প্রকাশ: বাংলাদেশের মেয়েলি গীত
চন্দ্রাবতী: বাংলাদেশের প্রথম নারী কবি

চন্দ্রাবতী: বাংলাদেশের প্রথম নারী কবি

বাংলা ভাষার তথা সমগ্র বাংলার আদি নারী কবি বলতে আজো খনা, রামী, মাধবী ও চন্দ্রাবতীকে বোঝালেও কেবল বাংলাদেশ বা পূর্ববাংলার প্রথম নারী কবি কে? এ প্রশ্ন করলে এককভাবে এবং অত্যন্ত পরিষ্কার ও দ্বিধাহীনভাবে একজন নারীকে শনাক্ত করা সম্ভব। বাংলাদেশের প্রথম নারী কবি হলেন কিশোরগঞ্জের চন্দ্রাবতী।

বুধবার, ১০ জুলাই ২০১৯, ১৮:২০

আমার বাবা কবি বাবা || মৃত্তিকা গুণ

আমার বাবা কবি বাবা || মৃত্তিকা গুণ

আমি দিদিমার কাছে বড় হয়েছি। বড় হওয়ার দিনগুলোতে সকাল-সন্ধ্যা নিয়ম করে বাবাকে কাছে পেয়েছি তা নয়। তবে বাবাকে মাঝেমধ্যে খুব-খুউব করে কাছে পাওয়ার সুযোগ হয়েছে ভ্রমণে গিয়ে। বাবার সঙ্গে অনেক দেশে ঘুরেছি। কোথাও গেলে দর্শনীয় স্থানগুলোতে বাবা নিয়ে যেতে ভুল করেন না। কলকাতা গেলে দর্শনীয় স্থানগুলো দেখিয়েছেন, সেগুলো সম্পর্কে অনেক কিছু বলেছেন। তবে বাবা শিক্ষক হতে পারেননি কখনো।

বুধবার, ১০ জুলাই ২০১৯, ১৮:১৯

আব্বাকে মনে পড়ে, মন পোড়ে || মৌলি আজাদ

আব্বাকে মনে পড়ে, মন পোড়ে || মৌলি আজাদ

আব্বার কাছ থেকে সবচেয়ে বড় যে বিষয়টি পেয়েছি তা হলো— স্বাধীনতা। ছোটবেলা থেকেই এটি পেয়েছি। ফলে নিজের ভালো লাগা, মন্দ লাগা, সব ধরনের সিদ্ধান্ত নিজের মতো করে নিতে পেরেছি। আব্বা আমাদের কোনো কাজে কখনো বাধা দিতেন না। যেমন: আমি নামাজ পড়ি। সবসময়ই পড়তাম।

বুধবার, ১০ জুলাই ২০১৯, ১৮:১৯

    সব খবর